[bangla_day] [english_date] [bangla_date]
ই-পেপার   [bangla_day] [english_date]

৯০ হাজার প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী মাসিক উপবৃত্তি পাচ্ছে
প্রকাশ: 26 December, 2018, 4:09 am |
অনলাইন সংস্করণ

৯০ হাজার প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী মাসিক উপবৃত্তি পাচ্ছে

নিউজ ডেস্ক।।

প্রতিবন্ধী শিশু-কিশোরদের শিক্ষা লাভের সহায়তা হিসেবে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার শিক্ষা উপবৃত্তি কর্মসূচী চালু করেছে। শিক্ষাজীবন শেষে বিশেষ সুবিধায় সরকারী চাকরি পাবে দেশের প্রতিবন্ধীরা। বর্তমানে দেশের ৯০ হাজার প্রতিবন্ধী প্রাথমিক থেকে উচ্চমাধ্যমিক পর্যন্ত ৫০০-১২০০ টাকা পর্যন্ত মাসিক শিক্ষা উপবৃত্তি পাচ্ছে। মানসিক প্রতিবন্ধী শিশু তুলির লেখাপড়া ও ভবিষ্যত নিয়ে মা সুফিয়া বেগমের হতাশা এখন আর নেই। এই মায়ের বিশ্বাস, একদিন রাষ্ট্র তার প্রতিবন্ধী শিশুর দায়িত্ব নিবে। আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে ঘরছাড়া ছিন্নমূল মানুষকে সরকারী উদ্যোগে বাড়ি করে দেয়া হচ্ছে। তৃণমূল পর্যায়ে বিদ্যুত পৌঁছে যাওয়া ও পর্যায়ক্রমে সব রাস্তাঘাট পাকা হওয়ার কার্যক্রম শুরু হওয়ায় গ্রামেই নাগরিক জীবনের সুবিধা পাচ্ছে সাধারণ মানুষ।

অন্যদিকে, শহরে প্রাইভেট গাড়ি নেই, তো কি হয়েছে? স্মার্ট ফোনের একটি মেসেজে চলে আসবে উবার, পাঠাওর মতো বেসরকারী পরিবহন সেবা। দরদাম ছাড়াই সুনির্দিষ্ট ভাড়ায় নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছে যাচ্ছে নগরবাসী। পরিবহন সেবায় এটি এক নতুন বিস্ময়। অবসরপ্রাপ্ত সরকারী চাকুরে রফিকুল ইসলাম মিয়া পেনশনের টাকা পান মোবাইল ফোনে। এজি অফিসে গিয়ে এখন আর তাকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয় না।

বরগুনার সালমা বেগম পারিবারিক সঞ্চয়পত্রের লাভের টাকা নির্দিষ্ট তারিখে পাচ্ছেন ব্যাংক এ্যাকাউন্টে। কষ্ট করে পোস্ট অফিস বা বাংলাদেশ ব্যাংকে আসতে হচ্ছে না তাকে। জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধারা ঘরে বসে মোবাইল ফোনে ভাতা পাচ্ছেন। যিনি সহসা মার্কেট কিংবা বাজারে যেতে চান না, তার জন্য রয়েছে অনলাইন কেনাকাটার ব্যবস্থা। পোশাক-আশাক, খাবার দাবারের পাশাপাশি দেশে কোরবানির গরু পর্যন্ত এখন অনলাইনে বেচাবিক্রি হয়ে থাকে। ডিজিটাল বিপ্লব বা চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের বিস্ময় হয়ে উঠছে। শহরের চাকুরে থেকে গ্রামের কৃষক পর্যন্ত উন্নয়নের অংশীদার হয়ে উঠছেন।

এ প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত  বলেন, আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার টানা দশ বছরের দেশ পরিচালনার সুযোগ পাওয়ায় বিশ্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল। প্রবৃদ্ধি বাড়ার সঙ্গে বিস্ময়করভাবে দরিদ্র মানুষের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে। সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতা বাড়ায় সমাজের পিছিয়ে পড়া মানুষটিও রাষ্ট্রের সুবিধা ভোগ করতে পারছে। আশ্রয়হীনকে ঘর, বেকারকে কর্মসৃজন প্রকল্পে ঢুকিয়ে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর ডিজিটাল বাংলাদেশের ছোঁয়া সর্বত্র। দেশের সব গ্রামে বিদ্যুত পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ রয়েছে সরকারের। পাকা হচ্ছে গ্রামীণ রাস্তাঘাট। মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। রফতানি ও রেমিটেন্সের পরিমাণ বাড়ছে প্রতিবছর। স্বল্পোন্নত থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে বাংলাদেশ।

সূত্র-দৈনিক শিক্ষা।

Spread the love




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদসমূহ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকঃ দেলওয়ার হোসেন
নির্বাহী সম্পাদকঃ এস এম মোশারফ হোসেন মিন্টু
বার্তা সম্পাদকঃ
 
মোবাইল- 01711102472
 
Design & Developed by
  কলাপাড়ায় বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানকারী সংস্থার কর্মকর্তাদের উপর হামলা,অর্ধশত গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা।।   “পায়রা বন্দরের মাধ্যমে পুরো বাংলাদেশকে আমরা পরিবহন সেবা দিতে চাই” নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী   পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন   ঘুরে দাঁড়িয়েছে বন্দর   কলাপাড়ায় জমি অধিগ্রহন না করার দাবিতে কৃষক ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন   ‘পায়রা সমুদ্র বন্দর বানিজ্য সম্ভাবনার নতুন দরজা”-পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের শ্লোগান   পায়রা বন্দরে ২০২১ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে ২২ হাজার কোটির টাকার মধ্য মেয়াদী প্রকল্প   নতুন পায়রা সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ