[bangla_day] [english_date] [bangla_date]
ই-পেপার   [bangla_day] [english_date]

স্কুল ঘরের মাত্র ১১টি খুটির কাঠের কংকাল পড়ে আছে
প্রকাশ: 12 October, 2018, 2:55 pm |
অনলাইন সংস্করণ

স্কুল ঘরের মাত্র ১১টি খুটির কাঠের কংকাল পড়ে আছে

মিলন কর্মকার রাজু, কলাপাড়া(পটুয়াখালী)।।
পটুয়াখালীর কলাপাড়ার আইউম পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন টিন সেড স্কুল ঘরের মাত্র ১১টি খুটির কাঠের কংকাল পড়ে আছে। বিদ্যালয়ের টিন, দরজা,জানালাসহ অন্যান্য মালামাল চুরি হয়ে গেছে। সরকারি এ প্রতিষ্ঠানটি সরকারি নিলাম তালিকায় থাকলেও সঠিক মূল্য না ওঠায় নিলামে বিক্রি হয়নি। এ কারনে রাতের আঁধারে বিভিন্ন মালামাল চুরি হতে হতে এখন শুধু কাঠের কংকালটিই দাড়িয়ে আছে।
১৯৫৬ খ্রিষ্টাব্দে প্রতিষ্ঠিত আইউম পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি সরকারিকরণ হয় ১৯৭৪ সালে। বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর এই টিনসেড ঘরেই নিয়মিত ক্লাস হতো। ছাত্র-ছাত্রী সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাওয়ায় পরবর্তীতে এ টিনসেড ঘরের পাশে আরও একটি টিনসেড স্কুল ঘর নির্মান করা হয়। ১৯৯৫ সালে বিদ্যালয়ে পাকা স্কুল ঘর নির্মান করা হলে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকে ওই টিনসেড স্কুল ঘর। ২০১২-১৩ অর্থ বছরে প্রথম ভবনের পাশে নির্মান করা হয় আরও একটি দ্বিতল স্কুল ভবন কাম সাইক্লোন সেল্টার। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে আবার এ দ্বিতল ভবনটি তৃতীয় তলায় বর্ধিত করা হয়।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বর্তমানে এ বিদ্যালয়ে ১৬৪ জন শিক্ষার্থী ও পাঁচ জন শিক্ষক রয়েছে। বিদ্যালয়ে পঞ্চম শ্রেণিতে ২৩, চতুর্থ শ্রেণিতে ৩২, তৃতীয় শ্রেণিতে ২২, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ২৮, প্রথম শ্রেণিতে ২৮ ও প্রাক প্রাথমিকে ৩১ জন শিক্ষার্থী রয়েছে।
স্থানীয়দের অভিযোগ, বিদ্যালয়ের আশেপাশের মানুষরাই রাতের আঁধারে স্কুল ঘরের টিন, খুঁটি, দরজা, জানালা খুলে নিয়েছে। শিক্ষকরা বিষয়টি জানেন কিন্তু তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া। একই ভাবে পরিত্যক্ত অপর টিনসেড ঘরের মালামাল চুরি হয়ে যাচ্ছে। অথচ সেটি এখনও নিলামে তোলা হয়নি।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মজিবর রহমান জানান, পরিত্যক্ত বিদ্যালয়ের টিনসেড ঘর দুই বার নিলামে উঠলেও নির্ধারিত মূল্যে কেউই এই টিনসেড ঘর কিনতে রাজি হয়নি। এ কারনে অনেক মালামাল চুরি হয়ে গেছে বলে স্বীকার করেন। তবে কিছু মালামাল গুদাম ঘরে নিয়ে রেখেছেন বলে জানান। তিনি বলেন, বিদ্যালয়ের সামনে থাকা প্রচীন টিনসেড স্কুল ঘর দুটি নিলামে বিক্রি হলে স্কুলের খেলার মাঠ আরও বড় হতো।
এ ব্যাপারে কলাপাড়া উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জালাল আহমেদ জানান, স্কুল ঘরের মালামাল চুরি হয়েছে কিনা বিষয়টি তাকে অবহিত করা হয়নি। যদি সরকারি স্কুলের মালামাল চুরি হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Spread the love




সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদসমূহ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকঃ দেলওয়ার হোসেন
নির্বাহী সম্পাদকঃ এস এম মোশারফ হোসেন মিন্টু
বার্তা সম্পাদকঃ
 
মোবাইল- 01711102472
 
Design & Developed by
  কলাপাড়ায় বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানকারী সংস্থার কর্মকর্তাদের উপর হামলা,অর্ধশত গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা।।   “পায়রা বন্দরের মাধ্যমে পুরো বাংলাদেশকে আমরা পরিবহন সেবা দিতে চাই” নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী   পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন   ঘুরে দাঁড়িয়েছে বন্দর   কলাপাড়ায় জমি অধিগ্রহন না করার দাবিতে কৃষক ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন   ‘পায়রা সমুদ্র বন্দর বানিজ্য সম্ভাবনার নতুন দরজা”-পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের শ্লোগান   পায়রা বন্দরে ২০২১ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে ২২ হাজার কোটির টাকার মধ্য মেয়াদী প্রকল্প   নতুন পায়রা সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ