[bangla_day] [english_date] [bangla_date]
ই-পেপার   [bangla_day] [english_date]

পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন
প্রকাশ: 5 February, 2019, 12:39 pm |
অনলাইন সংস্করণ

পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন

কলাপাড়া প্রতিনিধি।।
পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পায়রা ১৩২০ মেগাওয়াট তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে আমদানীকৃত কয়লা, লাইমস্টোন খালাসের জন্য চারটি গ্রাব শিপ আনলোডার (পণ্য নামানোর যন্ত্র) আনা হয়েছে। বন্দরের শুল্কায়নসহ অন্যান্য কাজ শেষ করে মঙ্গলবার দুপুরে পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রধান জেটিতে সরাসরি ভিড়ল কয়লা, লাইমস্টোনসহ পণ্য খালাশের যন্ত্র ‘গ্র্যাব শিপ আনলোডার’ বহনকারী জাহাজ শিন চেন ওশান। ২৫ হাজার টন বহন ক্ষমতা সম্পন্ন ১৫৪ মিটার দীর্ঘ ৪০মিটার প্রস্থ জাহাজটি মঙ্গলবার দুপুরে পায়রা বিদ্যুত কেন্দ্রের জেটিতে নোঙ্গর করেছে। গত রোববার চায়না থেকে মেশিন গুলো একটি জাহাজে করে পায়রা সমুদ্র বন্দরে এসে পৌঁছে।
প্রায় এক লাখ টন ক্ষমতা সম্পন্ন জেটিতে জাহাজটি নোঙর করার মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস গড়ল পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষসহ তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের কর্মকর্তারা। চারটি গ্রাব শিপ আনলোডারের মাধ্যমে আনলোড করে কনভেয়ার বেল্টের মাধ্যমে বিদ্যুত কেন্দ্রে স্থাপিত কয়লা মজুদ রাখার ডোমে পৌছবে। ৩২ মিটার বুম দীর্ঘ এবং ৪৮ মিটার উচ্চতার একেকটি গ্র্যাব শিপ প্রত্যেকটির ঘন্টায় ৮ শ’ টন, ৪টি মিলে ঘন্টায় ৩২০০ টন কয়লা খালাস হবে। প্রতি বছর এ জেটি দিয়ে প্রায় ৪ মিলিয়ন টন কয়লা খালাস করার সক্ষমতা সম্পন্ন এই গ্র্যাব শিপ আনলোডার স্থাপনের জন্য সরাসরি চীন থেকে জাহাজটি সাগরপথে বাংলাদেশে এসে পৌছে বলে বিসিপিসিএল এর সহকারী প্রকৌশলী মো. পিঞ্জুর রহমান জানান।
পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের প্রশাসনিক কর্মকর্তা শাহমনি জিকো জানান, চীন থেকে গ্রাব শিপ আনলোডার বহনকারী জাহাজ শিনচেন ওশান পৌছতে ২০দিন সময় লেগেছে। পায়রা বন্দর কর্তৃপক্ষের ডক মাস্টার ক্যাপ্টেন এসএম শরীফুর রহমান ও পাইলট ক্যাপ্টেন আসীফ আহমেদ গ্র্যাব শিপ আনলোডার বহনকারী জাহাজটি পায়রা বন্দর জেটি থেকে সরাসরি পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রের ৩৮৫ মিটার দীর্ঘ জেটির উত্তরাংশে নোঙর করে আনুষ্ঠানিকভাবে বুঝিয়ে দেন।
বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানীর (বিসিপিসিএল) নির্বাহী প্রকৌশলী (পূর্ত) মো. রেজওয়ান ইকবাল খান জানান, চায়নার ডালিয়ান হুয়ারুই হেভি ইন্ডাস্ট্রি গ্রæপ লিমিটেড এ আনলোডার প্রস্তুতকারক।
জেটিতে গ্রাব আনলোডার বহনকারী জাহাজ নোঙরকালে চায়না ন্যাশনাল এনার্জি ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন কোম্পানী লিমিটেডের (সিইসিসি) প্রকল্প পরিচালক হ্যান লি গুয়া, বাংলাদেশ-চায়না পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানীর (বিসিপিসিএল) নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়াং ঝিসহ বিদ্যুত প্লান্টের কর্মরত উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। তাদের কাছে এ মুহুর্তটি একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন।
গ্র্যাব শিপ আনলোডার মেশিনে কয়লা, লাইমস্টোন আনলোডারের মাধ্যমে আনলোড করে কনভেয়ার বেল্টের মাধ্যমে বিদ্যুত কেন্দ্রে স্থাপিত কয়লা জমা রাখার ডোমে পৌছবে। কলাপাড়ার ধানখালীতে নির্মানাধীন ১৩২০ মেগাওয়াট পায়রা তাপ বিদ্যুত কেন্দ্রটি এ বছরের শেষের দিকে উৎপাদনে যাওয়ার কথা। ইতোমধ্যে বিদ্যুত কেন্দ্রের শতকরা ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে তারা জানান।

Spread the love




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদসমূহ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকঃ দেলওয়ার হোসেন
নির্বাহী সম্পাদকঃ এস এম মোশারফ হোসেন মিন্টু
বার্তা সম্পাদকঃ
 
মোবাইল- 01711102472
 
Design & Developed by
  কলাপাড়ায় বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানকারী সংস্থার কর্মকর্তাদের উপর হামলা,অর্ধশত গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা।।   “পায়রা বন্দরের মাধ্যমে পুরো বাংলাদেশকে আমরা পরিবহন সেবা দিতে চাই” নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী   পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন   ঘুরে দাঁড়িয়েছে বন্দর   কলাপাড়ায় জমি অধিগ্রহন না করার দাবিতে কৃষক ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন   ‘পায়রা সমুদ্র বন্দর বানিজ্য সম্ভাবনার নতুন দরজা”-পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের শ্লোগান   পায়রা বন্দরে ২০২১ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে ২২ হাজার কোটির টাকার মধ্য মেয়াদী প্রকল্প   নতুন পায়রা সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ