[bangla_day] [english_date] [bangla_date]
ই-পেপার   [bangla_day] [english_date]

দুমকিতে ব্রিজের বেহাল দশা, এলাকাবাসীর দুর্ভোগ
প্রকাশ: 9 December, 2018, 11:26 am |
অনলাইন সংস্করণ

দুমকিতে ব্রিজের বেহাল দশা, এলাকাবাসীর দুর্ভোগ

দুমকি প্রতিনিধি।।

পটুয়াখালীর দুমকিতে এলজিইডির অর্ধশতাধিক আয়রণ ব্রিজের বেহাল দশায় চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন প্রত্যন্ত এলাকার স্কুল-কলেজগামী শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী।

উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকায় জনচলাচলের গ্রামীন কাঁচারাস্তা ও ইউনিয়ন কানেক্টিং সড়কের খাল ও নালার ওপর নির্মিত আয়রণ ব্রিজগুলো সংস্কারাভাবে বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। এসব আয়রণ ব্রিজের অধিকাংশই বিভিন্ন স্থানের স্লীপার ভেঙ্গে পারাপারের অযোগ্য হয়ে আছে। কয়েকটি ব্রিজের আংশিক ও সম্পূর্ণ স্লীপার ভেঙ্গে পড়ায় শুধুমাত্র ব্রিজের আয়রণ কাঠামো দাড়িয়ে রয়েছে। এলাকাবাসীদের চলাচলের জন্য বিকল্প পথে বাঁধ দিয়ে ওইসব পথে যাতায়ত করতে হচ্ছে।

সরেজমিন পরিদর্শণে দেখাযায়, উপজেলার জনতা কলেজ থেকে দক্ষিণে কার্ত্তিকপাশা মুন্সীরবাজার সড়কে শরীফবাড়ী সংলগ্ন আয়রণ ব্রিজের উভয় দিকের অন্তত: দুইতৃতীয়াংশ স্লীপার ভেঙ্গে জনচলাচল মারাত্মক ভাবে বিঘিœত হচ্ছে। এ সড়ক দিয়ে উপজেলা সদরে নিত্য চলাচলকারী বিভিন্ন স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার শত শত ছাত্র-ছাত্রীসহ ১০গ্রামের মানুষ চরম দুর্ভোগের শিকার হয়েছে। এলাকাবাসী ব্রিজটি দ্রুত সংস্কারের দাবি করে আসলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ রয়েছে নির্বিকার। স্থানীয় ইউপি সদস্য আনিছুর রহমান মৃধা বলেন ইউপি চেয়ারম্যানের মাধ্যমে উপজেলা প্রকৌশল বিভাগে বহুবার আবেদন নিবেদন করলেও কর্তৃপক্ষ কোন উদ্যোগ নেয়নি। লেবুখালী ইউপি চেয়ারম্যান শাহআলম আকন বলেন, উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় উত্থাপণ করা হয়েছে। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে প্রকল্প দেওয়া হলেও আজ পর্যন্ত ব্রিজটি সংস্কারের কোন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে না। উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ সূত্রমতে, সরকারী হিসেবে উপজেলা শ্রীরাপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ৪টি, লেবুখালী ইউনিয়নে ১৫টি, আংগারিয়া ইউনিয়নে ৮টি, মুরাদিয়া ইউনিয়নে ১০টি ও পাংগাশিয়া ইউনিয়নে ৫টি মোট ৪২টি সংস্কারবিহীন আয়রণ ব্রিজ আছে। কিন্তু বাস্তবে ৫ইউনিয়নে আয়রণ ব্রিজের সংখ্যা অর্ধশতাধিক।

এসব আয়রণ ব্রিজগুলো দীর্ঘদিন যাবৎ সংস্কার বিহীন পড়ে থাকায় একদিকে জনচলাচলে চরম ভোগান্তি বাড়ছে অপর দিকে লক্ষ লক্ষ টাকা মূল্যের সরকারী সম্পদ ধীরে ধীরে নষ্ট/অপচয় হয়ে যাচ্ছে। এলাকাবাসীর নিত্য চলাচলের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এসব আয়রণ ব্রিজগুলো অগ্রাধিকার বিবেচনায় দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন। এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী দিপুল কুমার বিশ্বাস বলেন, আয়রণ ব্রিজগুলো সংস্কারের প্রকল্প প্রস্তাব প্রধান প্রকৌশল অধিদপ্তরে পাঠানো হয়েছে। বরাদ্দ পেয়ে দ্রুততার সাথে সংস্কার কাজ আরম্ভ করা হবে।

Spread the love




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদসমূহ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকঃ দেলওয়ার হোসেন
নির্বাহী সম্পাদকঃ এস এম মোশারফ হোসেন মিন্টু
বার্তা সম্পাদকঃ
 
মোবাইল- 01711102472
 
Design & Developed by
  কলাপাড়ায় বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানকারী সংস্থার কর্মকর্তাদের উপর হামলা,অর্ধশত গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা।।   “পায়রা বন্দরের মাধ্যমে পুরো বাংলাদেশকে আমরা পরিবহন সেবা দিতে চাই” নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী   পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন   ঘুরে দাঁড়িয়েছে বন্দর   কলাপাড়ায় জমি অধিগ্রহন না করার দাবিতে কৃষক ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন   ‘পায়রা সমুদ্র বন্দর বানিজ্য সম্ভাবনার নতুন দরজা”-পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের শ্লোগান   পায়রা বন্দরে ২০২১ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে ২২ হাজার কোটির টাকার মধ্য মেয়াদী প্রকল্প   নতুন পায়রা সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ