[bangla_day] [english_date] [bangla_date]
ই-পেপার   [bangla_day] [english_date]

কলাপাড়ায় আট শিক্ষানুরাগীর পাঠশালা
প্রকাশ: 8 December, 2018, 8:12 am |
অনলাইন সংস্করণ

কলাপাড়ায় আট শিক্ষানুরাগীর পাঠশালা

মিলন কর্মকার রাজু ।।

লাকী আক্তার, রিম্পা, সুমি, পাপড়ি, মোর্শেদা, আঁখিতারা, রেহেনা ও ঝুমুর। এরা আটজন যেন শিক্ষা বিপ্লবে নেমেছেন। গ্রামের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করার ব্রত নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে পাঠদান দিচ্ছে। আর্থিক দৈন্যদশায় প্রাথমিকের গণ্ডি না পেরোতেই এ শিক্ষার্থীরা যাতে ঝরে না পড়ে, এ লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন এ আট শিক্ষানুরাগী। পটুয়াখালীর কলাপাড়ার বালিয়াতলী ইউনিয়নের আইয়ুম পাড়া গ্রামে লাকী আক্তার, বলিপাড়া গ্রামে রিম্পা, মাঝেরপাড়া গ্রামে মোর্শেদা, বড় বালিয়াতলী গ্রামে সুমি, দিগর বালিয়াতলী গ্রামে পাপড়ি, মধুখালী গ্রামে আঁখিতারা, তুলাতলী গ্রামে রেহেনা ও চরনজির গ্রামে ঝুমুর নিজ বাড়িতে গড়ে তুলেছেন গ্রামীণ সামাজিক শক্তি কমিটির উদ্যোগে এ শিক্ষা পাঠশালা। এ পাঠশালায় স্কুল মাদরাসার অন্য শিক্ষার্থীদের সাথে দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পাঠদান করানো হচ্ছে।

লাকী আক্তার, রিম্পা, সুমি, পাপড়ি, মোর্শেদা, আঁখিতারা, রেহেনা ও ঝুমুর। এরা আটজন যেন শিক্ষা বিপ্লবে নেমেছেন। গ্রামের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর স্কুলগামী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত করার ব্রত নিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে পাঠদান দিচ্ছে। আর্থিক দৈন্যদশায় প্রাথমিকের গণ্ডি না পেরোতেই এ শিক্ষার্থীরা যাতে ঝরে না পড়ে, এ লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন এ আট শিক্ষানুরাগী। পটুয়াখালীর কলাপাড়ার বালিয়াতলী ইউনিয়নের আইয়ুম পাড়া গ্রামে লাকী আক্তার, বলিপাড়া গ্রামে রিম্পা, মাঝেরপাড়া গ্রামে মোর্শেদা, বড় বালিয়াতলী গ্রামে সুমি, দিগর বালিয়াতলী গ্রামে পাপড়ি, মধুখালী গ্রামে আঁখিতারা, তুলাতলী গ্রামে রেহেনা ও চরনজির গ্রামে ঝুমুর নিজ বাড়িতে গড়ে তুলেছেন গ্রামীণ সামাজিক শক্তি কমিটির উদ্যোগে এ শিক্ষা পাঠশালা। এ পাঠশালায় স্কুল মাদরাসার অন্য শিক্ষার্থীদের সাথে দরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে পাঠদান করানো হচ্ছে।

সুমি বলেন, গ্রামীণ জনপদে এখনও আট থেকে ১২ বছর বয়সেই অনেক ছেলেরা পরিবারের দৈন্যদশায় ঝুঁকিপূর্ণ শ্রমে নিয়োজিত হচ্ছে। একারণে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে তাদের লেখাপড়া। এ শিশুরা যাতে আর্থিক সংকটে ক্লাসে পিছিয়ে না পড়ে তাই তাদের বিনামূল্যে পাঠদান করিয়ে শিক্ষায় আগ্রহী করার চেষ্টা করছেন। এ দুই শিক্ষা বিপ্লবীর মতো অন্যরা নিজ নিজ এলাকায় দরিদ্র পরিবারের সন্তানদের বিনামূল্যে পাঠ দিয়ে তাদের স্কুলগামী করার উদ্যোগ নিয়েছেন। অভিভাবক সালমা বেগম বলেন, পরিবারে অভাবের কারণে তাদের ঠিকমতো খাবার জোটে না। সন্তানদের স্কুলে পাঠালেও নিজেরা লেখাপড়া না জানার কারণে তাদের ক্লাসের পড়া বাসায় বসে মুখস্থ করাতে পারেন না। আপারা তাদের সন্তানদের ফ্রি পড়াচ্ছে। এ কারণে ছেলে-মেয়েরাও স্কুলে যেতে আগ্রহী হয়ে উঠছে। অথচ বছরের ছয় মাসে আগে তারা ছিল স্কুলে অনিয়মিত। এখন ভোর হলেই তারা বই-খাতা নিয়ে পড়তে যেতে,স্কুলে যেতে ব্যস্ত হয়ে পড়ে।

কলাপাড়ার বালিয়াতলী ইউনিয়নের গ্রাম সামাজিক শক্তি কমিটির উদ্যোগে ও এনজিও ব্রাকের সহায়তায় এই ফ্রি কোচিং ক্লাসের উদ্যেগ নেয়া হয়েছে বলে জানালেন তুলতলী কমিটির সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক আকতারুজ্জামান। তিঁনি বলেন, বালিয়াতলী ইউনিয়নে দরিদ্র ৩০৭ পরিবারকে গ্রামীণ সামাজিক শক্তি কমিটিতে অন্তভূক্ত করা হয়েছে। এসব পরিবারের সদস্যদের মধ্যে অতিদরিদ্র পরিবারের ছেলে-মেয়েদের এ ফ্রি কোচিং ক্লাসে পাঠদান করানো হচ্ছে, যাতে তারা প্রাথমিকের গণ্ডি না পেরোতেই ঝরে না পড়ে শিক্ষাজীবন থেকে।

Spread the love




এই ক্যাটেগরির আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদসমূহ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকঃ দেলওয়ার হোসেন
নির্বাহী সম্পাদকঃ এস এম মোশারফ হোসেন মিন্টু
বার্তা সম্পাদকঃ
 
মোবাইল- 01711102472
 
Design & Developed by
  কলাপাড়ায় বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানকারী সংস্থার কর্মকর্তাদের উপর হামলা,অর্ধশত গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা।।   “পায়রা বন্দরের মাধ্যমে পুরো বাংলাদেশকে আমরা পরিবহন সেবা দিতে চাই” নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী   পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন   ঘুরে দাঁড়িয়েছে বন্দর   কলাপাড়ায় জমি অধিগ্রহন না করার দাবিতে কৃষক ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন   ‘পায়রা সমুদ্র বন্দর বানিজ্য সম্ভাবনার নতুন দরজা”-পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের শ্লোগান   পায়রা বন্দরে ২০২১ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে ২২ হাজার কোটির টাকার মধ্য মেয়াদী প্রকল্প   নতুন পায়রা সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ