[bangla_day] [english_date] [bangla_date]
ই-পেপার   [bangla_day] [english_date]

এই দিনে: ১২ নভেম্বর ২০১৮
প্রকাশ: 12 November, 2018, 7:31 am |
অনলাইন সংস্করণ

এই দিনে: ১২ নভেম্বর ২০১৮

ইতিহাস কথা বলে। মানুষকে ভাবায়, তাড়িত করে। প্রতিদিনের উল্লেখযোগ্য ঘটনা কালক্রমে রূপ নেয় ইতিহাসে। সেসব ঘটনাই ইতিহাসে স্থান পায়, যা ভালো, যা মন্দ এবং মানবসভ্যতার জন্য অভিশাপ-আশীর্বাদ। তাই ইতিহাসের দিনপঞ্জি মানুষের কাছে সবসময় গুরুত্ব বহন করে। এই গুরুত্বের কথা মাথায় রেখে পাঠকদের জন্য নিয়মিত আয়োজন ‘ইতিহাসের এই দিন’।

আজ ১২ নভেম্বর, ২০১৮, সোমবার। ২৮ কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ। একনজরে দেখে নিন ইতিহাসের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যু দিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনা
১৯১৮- অস্ট্রিয়াকে প্রজাতন্ত্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়।
১৯৩০- ভারতে ব্রিটিশবিরোধী আইন অমান্য আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে লন্ডনে প্রথম গোলটেবিল বৈঠক।
১৯৫৬- মরোক্কো, তিউনিসিয়া ও সুদান জাতিসংঘে যোগদান করে।
১৯৭০- বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে ও জলোচ্ছ্বাসে ১০-১৫ লাখ মানুষ প্রাণ হারান।
১৯৭১- চীনের সঙ্গে রুয়ান্ডার কূটনৈতিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠা।
১৯৯০- পৃথিবীর প্রাচীনতম ও ২৬০০ বছরের ঐতিহ্যবাহী বংশপরম্পরাগত রাজতন্ত্রের সিংহাসনে জাপানের সম্রাট আকাহিতো অভিষিক্ত হন।
১৯৯৬- জাতীয় সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে মানবতাবিরোধী কালাকানুন ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করা হয়।

জন্ম
১৬৪৮- মেক্সিকান কবি হুয়ানা ইনেস দে লা ক্রস।
১৮১৭- বাহাউল্লা নামে পরিচিত আধ্যাত্মিক নেতা, বাহাই বিশ্বাসের জনক মির্জা হুসায়েইন আলী নুরি।
১৮৪০- প্রখ্যাত ভাস্কর্যশিল্পী আগুস্ত রঁদ্যা।

প্যারিসের একটি শ্রমজীবী পরিবারে তার জন্ম। পুরো নাম ফ্রাঁসোয়া অগুস্ত রেনে রদ্যাঁ। তার কাজ উনিশ শতকের শেষ ভাগে শিল্পজগতে ব্যাপক প্রভাব ফেলে। বোজ আর্ট ধারার অনুগামী ও বিরোধী এ ভাস্কর জটিল মানবমূর্তি নির্মাণে অদ্বিতীয় নৈপুণ্য দেখিয়ছেন। বিশ্বের উল্লেখযোগ্য বিভিন্ন জাদুঘর ও সংগ্রহশালায় রদ্যাঁর ভাস্কর্য সংগৃহীত রয়েছে।

১৮৬৬- চীনের বিপ্লবী নেতা সান ইয়াৎ সেন।
১৮৯৬- ভারতের প্রখ্যাত পক্ষীবিশারদ সেলিম আলী।

মৃত্যু
১৯৪৬- ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামী ও শিক্ষাবিদ পণ্ডিত মদনমোহন মালব্য।
১৯৬৯- শিক্ষাবিদ, লেখক ও বুদ্ধিজীবী অজিতকুমার গুহ।

সাহিত্য, শিক্ষা ও সংস্কৃতি সম্পর্কে তিনি বহু প্রবন্ধ রচনা করে গেছেন। এ দেশের অসাম্প্রদায়িক ও ধর্মনিরপেক্ষ সাহিত্য-সংস্কৃতিচর্চার ধারা নির্মাণে তার অবদান ও সাফল্য অপরিসীম। তিনি রবীন্দ্রনাথের সঞ্চয়িতা, সোনার তরী ও গীতাঞ্জলি এবং কালিদাসের মেঘদূত সম্পাদনা করে কৃতিত্বের পরিচয় দেন।

রবীন্দ্রসাহিত্যের খ্যাতনামা অধ্যাপক এবং সুবক্তা হিসেবেও তার খ্যাতি ছিল। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক ও সাহিত্যসভায় শ্রুতিমধুর বক্তৃতা দিয়ে তিনি ব্যাপক সুনাম অর্জন করেন।

১৯৮৯- বিশ্বনন্দিত কমিউনিস্ট নেত্রী, স্পেনের কমিউনিস্ট পার্টির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও স্পেনের গৃহযুদ্ধের নায়িকা ডলোরেস ইরারুর বির।

Spread the love




সর্বশেষ সংবাদ

সাম্প্রতিক সংবাদসমূহ

সর্বাধিক পঠিত

সম্পাদকঃ দেলওয়ার হোসেন
নির্বাহী সম্পাদকঃ এস এম মোশারফ হোসেন মিন্টু
বার্তা সম্পাদকঃ
 
মোবাইল- 01711102472
 
Design & Developed by
  কলাপাড়ায় বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মানকারী সংস্থার কর্মকর্তাদের উপর হামলা,অর্ধশত গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে মামলা।।   “পায়রা বন্দরের মাধ্যমে পুরো বাংলাদেশকে আমরা পরিবহন সেবা দিতে চাই” নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী   পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে মঙ্গলবার ৪টি আনলোডার মেশিন যুক্ত হয়েছে।। ৬৩ ভাগ কাজ সম্পন্ন   ঘুরে দাঁড়িয়েছে বন্দর   কলাপাড়ায় জমি অধিগ্রহন না করার দাবিতে কৃষক ও মুক্তিযোদ্ধাদের সংবাদ সম্মেলন   ‘পায়রা সমুদ্র বন্দর বানিজ্য সম্ভাবনার নতুন দরজা”-পটুয়াখালী চেম্বার অব কমার্সের শ্লোগান   পায়রা বন্দরে ২০২১ সালের মধ্যে বাস্তবায়ন হবে ২২ হাজার কোটির টাকার মধ্য মেয়াদী প্রকল্প   নতুন পায়রা সমুদ্রবন্দর বাংলাদেশের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ